শবে মেরাজের নামাজের নিয়ত

শবে মেরাজের নামাজের নিয়ত

বিশ্ব মুসলিমদের একটি বিশেষ দিন হচ্ছে শবে মেরাজ এর দিন। এই দিনে বিভিন্ন ইবাদইতের মাধ্যমে আল্লাহ তায়ালাকে খুশী করা হয়। কেননা রহমত লাভের দিন এটি। তবে বেশিরভাগ মানুষ নামাজ বা সালাত আদায়ের মাধ্যমে শবে মেরাজ পালন করে। এই নামাজের জন্য আলাদা নিয়ম রয়েছে। এছাড়া নামাজ শুরুর পূর্বে নিয়ত করতে হবে। শবে মেরাজের নামাজের নিয়ত টি আমাদের অনেকের জানা নেই। কেউ আবার আরবি ভাষা পড়তে না পারায় নিয়ত মুখস্থ করতে পারে না। নিচে উচ্চারণ সহ বাংলা ভাষায় নিয়ত টি দেওয়া আছে।

শবে মেরাজের নামাজের নিয়ত

শবে মেরাজ ইসলামের একটি গুরুত্বপূর্ণ দিবস। এ রাতে মহান আল্লাহ তায়ালার নির্দেশে প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) আরশে আজিম পর্যন্ত ঊর্ধ্বলোক গমন করেছিলেন। এ সময় তিনি মহান আল্লাহর দিদার লাভ করেন এবং আল্লাহর কাছ থেকে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের বিধান নিয়ে একই রাতে আবার দুনিয়াতে ফিরে আসেন।শবে মেরাজের রাতে মুসলমানরা বিভিন্ন ইবাদত-বন্দেগির মাধ্যমে এ রাতের ফজিলত অর্জনের চেষ্টা করেন। এর মধ্যে অন্যতম একটি আমল হল শবে মেরাজের নামাজ। শবে মেরাজের নামাজ দুই রাকাত করে পড়তে হবে।

নাওয়াইতুআন উছাল্লিয়া লিল্লাহে তা’আলা রাক’আতায় ছালাতি লাইলাতিল মে’রাজ মুতাওইয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কা’বাতিশ শারিফাতি আল্লাহু আক্বার। এটি হচ্ছে শবে মেরাজের নামাজের সঠিক নিয়ত।  অর্থ: আমি আল্লাহ তা’আলার উদ্দেশ্যে কেবলামুখী হয়ে শবে মেরাজের দুই রাকাত নফল নামাজ আদায় করছি। আল্লাহু আকবার।

শবে মেরাজের নামাজের নিয়ত আরবি ভাষায়

মুসলমানদের কুরআন শরিফ পড়া জানতে হবে। কেননা আল কুরআনে এমন কোনো বিষয়ে নেই যে , লেখা বাদ আছে। পৃথিবীর সকল কিছু সম্পর্কে কুরআন শরিফে বর্নিত আছে। যারা আরবি ভাষা জানেন তারা আরবিতে শবে মেরাজের নামাজের নিয়ত করতে পারবেন। উচ্চারণ গুলো একই। نويت أن أصلي لله تعالى ركعتين صلاة ليلة المعراج متوجها إلى قبلة المسجد الحرام الله أكبر। যারা আরবিতে পারবেন না তারা আমি আল্লাহ তা’আলার উদ্দেশ্যে কেবলামুখী হয়ে শবে মেরাজের দুই রাকাত নফল নামাজ আদায় করছি। আল্লাহু আকবার এই নিয়ত টি পরেও নামাজ শুরু করতে পারবেন।

শবে মেরাজের নামাজের দোয়া

নামাজ শেষে দোয়া পড়তে হবে। প্রতি ৪ রাকাত পর পর বা নামাজের শেষে এই দোয়াটি পড়তে পারবেন। শবে মেরাজের নামাজের শেষে যেকোনো দোয়া পড়া যেতে পারে। তবে নিম্নের দোয়াটি পড়ার বিশেষ ফজিলত রয়েছে: اللهم إني أسألك من خير ما سألك منه نبيك محمد صلى الله عليه وسلم، وأعوذ بك من شر ما استعاذ منه نبيك محمد صلى الله عليه وسلم، اللهم إني أسألك الجنة وأعوذ بك من النار

অর্থ: হে আল্লাহ! আমি তোমার কাছে সেই কল্যাণ চাই, যে কল্যাণ তোমার নবী মুহাম্মদ (সা.) চেয়েছিলেন। আর আমি তোমার কাছে সেই অকল্যাণ থেকে আশ্রয় চাই, যে অকল্যাণ থেকে তোমার নবী মুহাম্মদ (সা.) আশ্রয় চেয়েছিলেন। হে আল্লাহ! আমি তোমার কাছে জান্নাত চাই এবং জাহান্নাম থেকে আশ্রয় চাই।

শবে মেরাজের নামাজের পদ্ধতি

শবে মেরাজের নামাজ নিয়মিত পড়লে মুসলমানদের ঈমান-আকিদা বৃদ্ধি পায়, আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন হয় এবং ইহকাল ও পরকালের কল্যাণ লাভ হয়।  নামাজের নিয়ত করে শবে মেরাজের রাতে দুই রাকাত নফল নামাজ আদায় করলে অনেক ফজিলত লাভ হয়। নামাজ আদায় করলে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জন হয় এবং পাপ থেকে মুক্তি লাভ হয়। তবে নামাজ টি অবশ্যই সঠিক ও নির্ভুল হতে হবে। শবে মেরাজ এর সালাত মোট ২ রাকাত। সর্বনিম্ন ১২ রাকাত পড়বেন। এর থেকে বেশিও পড়া যাবে।

প্রথম রাকাত

নিয়ত করে তাকবীরে তাহরিমা বলে রুকুতে যাওয়ার আগে যেকোনো সুরা পড়া।
রুকুতে যাওয়া।
রুকু থেকে দাঁড়ানো।
সাজদায় যাওয়া।
সাজদায় থেকে দাঁড়ানো।
দ্বিতীয় সুরা পড়া।
রুকুতে যাওয়া।
রুকু থেকে দাঁড়ানো।
সাজদায় যাওয়া।
সাজদায় থেকে দাঁড়ানো।
তাশাহহুদ, দুরুদ ও দোয়া পড়া।

দ্বিতীয় রাকাত

তাশাহহুদ, দুরুদ ও দোয়া পড়া।
তৃতীয় সুরা পড়া।
রুকুতে যাওয়া।
রুকু থেকে দাঁড়ানো।
সাজদায় যাওয়া।
সাজদায় থেকে দাঁড়ানো।
চতুর্থ সুরা পড়া।
রুকুতে যাওয়া।
রুকু থেকে দাঁড়ানো।
সাজদায় যাওয়া।
সাজদায় থেকে দাঁড়ানো।
তাশাহহুদ, দুরুদ ও দোয়া পড়া।
সালাম ফেরানোর মাধ্যমে নামাজ শেষ করা।

শেষ কথা

নামাজের জন্য প্রথম ধাপ হচ্ছে এর নিয়ত করা। নিয়ত ঠিক না থাকলে নামাজ ঠিক থাকে না। তাই আরবি তে বা বাংলাতে যেকোনো ভাষায় নামাজের নিয়ত মুখস্থ করে নিবেন। যেহেতু প্রত্যেক নামাজের নিয়ত নির্ধারন করে দেওয়া আছে। তাই শবে বরাত এর সালাত আদায় করতে নির্ধারিত নিয়ত পড়তে হবে। আশা করছি শবে মেরাজের নামাজের নিয়ত সংগ্রহ করে নিয়েছেন।

আরও দেখুনঃ

শবে মেরাজের নামাজের নিয়ম

শবে মেরাজ কবে ২০২৪

One Comment on “শবে মেরাজের নামাজের নিয়ত”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *